7.2 C
Düsseldorf

সাদামাটা সংলাপ

Must read

গোলজার হোসাইন খান
গোলজার হোসাইন খান
আমি সোনালী ব্যাংক লিমিটেড এর একজন অবসরপ্রাপ্ত এসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার।অতি সাধারণ মানুষ। কোন উচ্চাভিলাষ নেই। সাংসারিক বোধবুদ্ধি শূন্যের কোঠায়। হেরে যাওয়া মানুষের পাশে থাকি।এড়িয়ে চলি স্বার্থপরতা।বিনম্র শ্রদ্ধায় নত হই সৃষ্টিশীল-পরিশ্রমী মানুষের প্রতি আর ভালবাসি আমার পেশাকে।

-তুমি কি জানো কেন শ্রীকান্তের অন্নদা দিদি এক সাপুড়ের সাথে পালিয়ে গিয়েছিল?
-মেয়েরা আহাম্মক বলেই এমনটা করে।
-মৃত্যুঞ্জয়তো পুরুষ ছিল সে কি জাত,ধর্ম সব ছেড়ে ছুড়ে সাপুড়ের মেয়ে বিলাসীর কাছে যায় নি?
-গল্প উপন্যাসে অমন অনেক কাহিনি বানানো হয়।এতোই যদি ভাবের জগতে থাকার হাউস ছিল তবে এপিজে আব্দুল কালাম বা এম এ জি ওসমানীর মতো থাকলেই পারতে।আমার সর্বনাশটা তাহলে হতো না।
-উনারা নমস্য মানুষ।কার সাথে কার তুলনা।তবে যাই বলোনা কেন,আমি বৈরাগী হলে তোমার জীবনটাও যে তাহলে জয়ললিতা আর মমতা ব্যানার্জীর মত পানসে হয়ে যেতো।
-এমন ফ্যাকাশে হওয়া থেকে তো বাঁচতাম।
-অমন করে বলোনা।শূন্যতার চাইতে পূর্ণতাও তো নেহাৎ কম নয়।সংসার-সন্তান-নিরাপত্তা।
-হয়েছে হয়েছে।রোমান্স ঝেড়ে ফেলে এই নাও বাজারের ব্যাগ।মাস্ক পরো আর এই যে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ছোট্ট বোতলটা পকেটে রাখো।ভীড় এড়িয়ে সাবধানে চলবে।

এই যত্নটুকুর জন্যই কিনা জানিনা সময় সময় ওর হাত ধরে অন্নদা কিংবা মৃত্যুঞ্জয়ের মত দূরে কোথাও পালিয়ে যেতে ইচ্ছে করে।

- Advertisement -spot_img

More articles

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন

- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ আপডেট