14.7 C
Düsseldorf

গবেষণায় পক্ষপাতিত্বের পরিণাম মারণাত্মক হতে পারে

Must read

আধুনিক প্রযুক্তির ক্ষেত্রে আপাতদৃষ্টিতে লিঙ্গ-বৈষম্য অথবা অন্য কোনো সংকীর্ণতা হয়তো তেমন চোখে পড়ে না৷ কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে এমন সচেতনতার অভাব এমনকি মারণাত্মক হতে পারে৷ আরও গবেষণার মাধ্যমে এমন দুর্বলতা চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে৷

আধুনিক প্রযুক্তির মধ্যেও ‘আনকন্সাস বায়াস’, অর্থাৎ অবচেতন মনের পক্ষপাতিত্ব লুকিয়ে রয়েছে৷ স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক লন্ডা স্কিবিঞ্জার এমন কিছু উদাহরণ তুলে ধরে বলেন, ‘‘আমরা দেখলাম, যে ফেশিয়াল রেকগনিশন প্রযুক্তি নারী এবং অপেক্ষাকৃত শ্যামবর্ণ ত্বকের ক্ষেত্রে কাজ করে না৷ এক কৃষ্ণাঙ্গ নারীকে মুখচ্ছবি শনাক্ত করার গবেষণার স্বার্থে ক্যামেরার সামনে ফর্সা মুখের মুখোশ পরতে হয়েছিল৷ অর্থাৎ আমরা মোটেই সবার জন্য কার্যকর প্রযুক্তি সৃষ্টি করছি না৷’’

তবে তার মতে, গবেষণার ক্ষেত্রে এমন দুর্বলতা দূর করতে শুধু সমান সংখ্যক নারী ও পুরুষকে কাজে লাগালে চলবে না৷ ইউরোপীয় কমিশনও সেটা বুঝতে পেরেছে৷ তাই সাড়ে আট হাজার কোটি ইউরো অংকের তহবিলের নাগাল পেতে হলে কিছু শর্ত পূরণ করতে হচ্ছে৷ ‘হোরাইজন ইউরোপ প্রোগ্রাম’ এখন শুধু সেই সব মানুষকে গবেষণার জন্য অনুদান দিচ্ছে, যারা ডিজাইন, তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণের মতো সব পর্যায়ে জেন্ডার ও ইন্টারসেকশনালিটিকে গুরুত্ব দেন৷ স্কিবিঞ্জার এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অর্থায়নের সিংহভাগের পেছনেই করদাতাদের অর্থ রয়েছে৷ সমাজ হিসেবে আমরাই যদি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে বিনিয়োগ করি, তার ফলাফলও যাতে হাতে গোনা কিছু মানুষের বদলে সমাজের সব স্তরের কাজে লাগুক, সেটা চাইতেই পারি৷’’

ইউরোপীয় কমিশনের সঙ্গে হাত মিলিয়ে স্কিবিঞ্জার ১৫টি উদাহরণ তুলে ধরেছেন, যেগুলিকে ‘বেস্ট প্র্যাকটিস’ বা আদর্শ বলা চলে৷

একাধিক ক্ষেত্রে সেটা সম্ভব হয়েছে৷ যেমন বাংলাদেশে বহুকাল ধরে মাছ ধরা পুরুষদের একচেটিয়া আধিপত্য ছিল৷ বিশেষ ধরনের জাল চালু করার ফলে এবার নারীরাও সেই কাজ করতে পারছেন৷ জমি থেকেই মাছ ধরতে পারছেন তারা৷ ফলে নারীদের রোজগারের পথ খুলে গেছে৷
শহুরে এলাকায় একটি দৃষ্টান্তও নজর কেড়েছে৷ ভবিষ্যতে পরিবহণের বদলে পরিবারগুলির চাহিদা মাথায় রেখে নগর পরিকল্পনার প্রস্তাব রাখা হয়েছে৷ নতুন প্রযুক্তি নারী-পুরুষ সংক্রান্ত বদ্ধমূল ধারণা ভবিষ্যতেও চালিয়ে যাচ্ছে কিনা, একটি উদ্যোগের আওতায় সে বিষয়ে নজর রাখা হচ্ছে৷ কিন্তু এমন ‘ইনক্লিউসিভ’ ভাবনা কি সব ক্ষেত্রের জন্য উপযুক্ত? স্কিবিঞ্জার মনে করেন, ‘‘কোন কোন ক্ষেত্রে এমন উদ্যোগ অর্থবহ, আমরা এখনো তা আবিষ্কার করে চলেছি৷ গণিত, মৌলিক গণিত, তাত্ত্বিক পদার্থবিদ্যার মতো ক্ষেত্রে এমন ভাবনা হয়তো প্রাসঙ্গিক নয়৷ কিন্তু সেটা জানার জন্য এখনো যথেষ্ট গবেষণা হয় নি৷’’

সামুদ্রিক কচ্ছপের ক্ষেত্রে শাবকের লিঙ্গ তাপমাত্রার উপর নির্ভর করে৷ বৈশ্বিক উষ্ণায়নের কারণে গ্রেট ব্যারিয়ার রিফের উত্তর দিকে এখন প্রায় ৯৯ শতাংশই মাদি কচ্ছপ দেখা যাচ্ছে৷ এমন সংযোগ ঠিকমতো বুঝতে পারলে তবেই আমরা ভবিষ্যতে আরও ভালো করে জটিল ইকোসিস্টেমের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে পারবো৷

সূত্রঃডয়েচে ভেলে

- Advertisement -spot_img

More articles

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন

- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ আপডেট